আজ ১৭ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং; ২রা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ; হেমন্তকাল

গফরগাঁওয়ে যৌতুকের টাকা না পেয়ে গৃহবধুুকে পুড়িয়ে হত্যা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে যৌতুকের টাকা না দেওয়ায় স্ত্রীর শরীরে আগুন লাগিয়ে হত্যার করেছে খোকন মিয়া নামে এক পাশ- স্বামী। ঘটনাটি ঘটে গত ১৮ জানুয়ারী উপজেলার রৌহা গ্রামে। শান্তি বেগম (২৫)নামে ঐ গৃহবধু ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত রবিবার মারা যায়।

এ ঘটনায় গতকাল সোমবার রাতে শান্তি বেগমের মা নূর জাহান বেগম বাদী হয়ে স্বামী, শ^শুর, শ^াশুড়ি ও দেবরের বিরুদ্ধে গফরগাঁও থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

নিহতের পরিবার ও থানা সূত্রে জানা যায়, পৌর শহরের চর শিলাসী এলাকার আব্দুল মতিনের মেয়ে শান্তি বেগমের সাথে প্রায় তিন বছর পূূর্র্বে উপজেলার রৌহা টান পাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে খোকন মিয়ার বিয়ে হয়। এই দম্পতির ঘরে ফাতেমা নামে ১ বছর বয়সের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের সময় বর পক্ষ যৌতুক বাবদ ২ লক্ষ টাকা দাবি করলে ৫০ হাজার টাকা নগত দেওয়া হয়।

পরে বিভিন্ন সময়ে  আরও ৫০ হাজার টাকা পরিশোধ করার হয় শান্তি বেগমের পরিবার থেকে। কিন্তু এর পর থেকে খোকনসহ তার পরিবারের লোকজন শান্তি বেগমের পরিবারের কাছে আরও ৫০ হাজার টাকা দাবি করে শান্তি বেগমকে প্রায়ই শারীরিক ও মানসিক নির্র্যাতন চালিয়ে আসছিল। এ অবস্থায় গত ১৮ জানুয়ারি খোকনসহ তার পরিবারের লোকজন শান্তি বেগমকে মারপিট করে ঘরের ভিতর আটকে শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে শান্তি বেগমের শরীরের নিচের অংশ পুরে গেলেও চিকিৎসার না করিয়ে ঘরের ভিতর ফেলে রাখে।

পরে প্রতিবেশীদের মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে শান্তি বেগমের পরিবারের লোকজন গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্র্ণ ইউনিটে ভর্র্তি করলে গত রবিবার বিকেলে শান্তি বেগম মারা যায়। এ  দিকে ঘটনার পর থেকে পাশ-  খোকন মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন ঘরে তালা দিয়ে পালিয়ে যায়।

শান্তি বেগমের মাতা নূর জাহান বলেন, ৫০ হাজার টেহার লাইগ্যা খোকন তার বাপ মা ভাইরে লইয়া আমার শান্তিরে আগুন লাগাইয়া মারছে। আমি বিচার চাই।

গফরগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল আহাদ খান বলেন, ঘটনার পর থেকে আসামীরা বাড়ি ঘর ফেলে পালিয়েছে। তবে ধরার জন্য বিভিন্ন স্থানে অভিযান চলছে।

প্রিন্ট করুন

মন্তব্য করুন