আজ ২০শে জুলাই, ২০১৮ ইং; ৫ই শ্রাবণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ; বর্ষাকাল

তারাকান্দা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সড়ক বেহাল অবস্থা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

098ad739b034d146789acd9e319bb7e2-5930561a83990ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ময়মনসিংহ-শেরপুর ও তারাকান্দা-ধোবাউড়া সড়কটি বেহাল হয়ে পড়েছে। বৃষ্টি হলে সড়ক দুটির এ অংশে কাদা হয়। আবার রোদের দিনে ধুলা ওড়ে। এ কারণে সড়কের এ অংশে প্রতিনিয়ত ভোগান্তিতে পড়ছে উপজেলাবাসী।

সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) ময়মনসিংহ কার্যালয় সূত্র জানায়, তারাকান্দা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ময়মনসিংহ-শেরপুর সড়কটি উপজেলা সদরের প্রধান সড়ক। সড়কটির বাসস্ট্যান্ড এলাকার দৈর্ঘ্য আনুমানিক ৫০০ মিটার। গত বছর বর্ষায় এ অংশ বেহাল হয়।

অন্যদিকে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) তারাকান্দা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, এলজিইডির অধীন তারাকান্দা-ধোবাউড়া সড়কটির তারাকান্দা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বড় বড় গর্ত রয়েছে। বৃষ্টি হলে গর্তে হাঁটুসমান পানি জমে থাকে।

এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী মো. আহসান উল্লাহ গতকাল বৃহস্পতিবার বলেন, ‘সড়কটি সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে এর বাসস্ট্যান্ড অংশ দ্রুত সংস্কার করা হবে। আশা করছি সাত দিনের মধ্যে এ অংশের কাজ শেষ হবে।’

গত বুধবার সরেজমিনে দেখা যায়, ময়মনসিংহ-শেরপুর সড়কে তারাকান্দা থানার সামনে আনুমানিক ১৫০ মিটার অংশে বেশ কিছু গর্ত। কার্পেটিং উঠে গেছে। বাসসহ বিভিন্ন যানবাহন চলাচলের সময় ধুলায় ধূসরিত হয়ে পড়ছে দুই পাশ। ধান মহাল অংশে আনুমানিক ১৫০ মিটার এলাকায় কার্পেটিং উঠে গেছে। সৃষ্টি হয়েছে গর্তের। এতে চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

এ সময় সড়কের দুই পাশের কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, সড়কটির এ দশার কারণে মানুষ এ অংশে আসতে চায় না। এতে ব্যবসার ক্ষতি হচ্ছে। তাঁরা রোদের দিনে কয়েকবার পানি ছিটিয়ে ধুলা নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেন।

গত ২৩ মে সরেজমিনে দেখা যায়, বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ময়মনসিংহ-শেরপুর সড়কে গর্তে পানি ও কাদা জমে আছে। কাদার কারণে মানুষ চলাচল করতে পারছে না। এলজিইডির তারাকান্দা-ধোবাউড়া সড়কটির মোড়ে কয়েকটি গর্তে পানি জমে আছে।

উপজেলার কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, বৃষ্টি হলে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কাদার কারণে মানুষ চলাচল করতে পারে না। আবার রোদের দিনে ধুলায় অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন। সড়কটি সংস্কার করা না হলে মানুষ এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পাবে না।

সওজের ময়মনসিংহ কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদ খান প্রথম আলোকে বলেন, পানিনিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় সড়কটির ওই অংশ ভেঙে যায়। গত এপ্রিলে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ১২০ মিটার অংশ ইট বিছিয়ে সংস্কার করা হয়েছে। এতে প্রায় ২৫ লাখ টাকা খরচ হয়েছে। এ অর্থবছরে সড়কটির এ অংশ আর সংস্কারের সুযোগ নেই। আগামী অক্টোবরে সড়কটি স্থায়ীভাবে সংস্কার করা হবে।

প্রিন্ট করুন
মন্তব্য করুন