আজ ১৫ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং; ৩০শে আশ্বিন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ; শরৎকাল

হালুয়াঘাটে প্রেমিকের বাড়িতে প্রেমিকার অনশন

  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    1
    Share

অনশনজেলার হালুয়াঘাটে উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকার এক পল্লীতে বিয়ের দাবিতে প্রেমিক আব্দুস সোবানের বাড়িতে পাঁচ দিন যাবৎ অনশন চালাচ্ছে প্রেমিকা শিমু আক্তার (২০) নামে এক কিশোরী।

জানা গেছে, গত ২৬ মে শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে চলছে এই অনশন। খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দিয়ে বিয়ের দাবিতে এ অনশনকারীকে দেখার জন্যে প্রতিদিন ভিড় জমাচ্ছে এলাকার শতশত উৎসুক জনতা।এ ঘটনায় এলাকায় বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। স্থানীয়রা জানায়, শিমু আক্তার উপজেলার নড়াইল ইউনিয়নের কুমুরিয়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল মোতালেবের কন্যা।

অপরদিকে প্রেমিক আব্দুস ছোবান(২২) কুমুরিয়া নয়াপাড়া গ্রামের আব্দুল কাদিররে ছেলে। মঙ্গলবার বিকেলে খবর নিয়ে জানা যায়, দীর্ঘ ৪ বছর যাবৎ প্রেমের সম্পর্ক ছিলো এই দুই তরুণ –তরুণীর।প্রেম বন্ধনে কথা হয়েছিল দুজনে বিয়ে করে সুখের সংসার বাধঁবে। এই আশায় শিমু হারিয়েছে অনেক কিছুই।

এদিকে ঘটনার দিন গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বিয়ের  প্রলোভন দেখিয়ে নিজ বাড়িতে প্রেমিকাকে নিয়ে আসে সোবান। এক পর্যায়ে পিতা-মাতার চাপের মুখে মেয়েটিকে নিজ বাড়িতে রেখে পালিয়ে যায় সে। এরপর শিমু আর কোনো কূলকিনারা না পেয়ে বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে অনশন চালিয়ে যাবার সিদ্ধান্ত নেয়।

এ বিষয়ে শিমু আক্তার বলেন, স্কুল জীবন থেকে সোবানের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে।তাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্কও হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যায় তার প্রেমিক তাদের নিজ বাড়িতে বিয়ের  প্রলোভন দেখিয়ে তাকে নিয়ে আসে। পরবর্তীতে প্রেমিক সোবান তার পিতা-মাতার কথামত বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়।

অপরদিকে শিমুকে পুত্রবধূ হিসাবে মেনে নিতে অস্বীকৃতি জানায় সোবানের পরিবার। শিমু বর্তমানে প্রেমিকের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অবস্থান করছেন। অন্যদিকে সোবানের পিতা আব্দুল কাদির বলেন, তার ছেলে মেয়েটিকে তার বাড়িতে নিয়ে আসেনি।

মেয়েটি নিজেই রাতে তার বসত ঘরে প্রবেশ করে বলেন যে সোবান তাকে বিয়ে করবে বলে বাড়িতে নিয়ে এসেছে। বর্তমানে মেয়েটি তার বাড়িতেই অবস্থান করছেন। এ ব্যাপারে হালুয়াঘাট থানার অফিসার ওসি কামরুল ইসলাম মিয়া বলেন, তিনি এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাননি। অভিযোগ পেলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে জানান ওসি।

প্রিন্ট করুন
মন্তব্য করুন