আজ ১৭ই অক্টোবর, ২০১৮ ইং; ২রা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ; হেমন্তকাল

সম্পাদকীয় : শিক্ষার্থীদের চুলকাটা – স্বার্থ নাকি শিষ্টাচার!

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Maymansing20170521120608মেহেদী জামান লিজনঃঃ

ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলায় রোববার সকালে উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের সাথিয়াকান্দা এলাকায় আর জে স্কুলে প্রথম ক্লাস চলার সময় ৪২ শিক্ষার্থীদের চুল কাটার ঘটনা ঘটে। অভিযোগ ওঠা শিক্ষক হাবিবুর রহমান তিনি স্কুলে বিজ্ঞান পড়ান।

এই ঘটনার প্রতিবাদে অভিভাবক ও কমিটির লোকজনের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ত্রিশাল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। তু শিক্ষক শিক্ষার্থীদের চুল কাটার ঘটনা কোন স্বার্থ হাসিলের প্রয়াস নাকি সত্যিই শিষ্টাচার ।

শিক্ষার্থীরা কি এমন করে চুল রেখেছিল ? যে জন্য শিক্ষার্থীদের এই ভাবে চুল কাটতে হবে, শিক্ষকরা তাদের অভিভাবকদের জানাতে পারতেন অথবা চুল কাটার প্রয়োজনীয়তা হলে নাপিত ডেকে ভাল করেই চুল কাটতেন হয়তো তাহলে চুল কাটার ঘটনাটি নিন্দনীয় না হয়ে হতে পারত উৎসবমুখর পরিবেশে ।

শিক্ষক যেমন শিক্ষার্থীদের শিষ্টাচার শেখায় অভিভাবক ও তেমনি যদি এইচুল কাটার ঘটনা শিষ্টাচার হয় তবে কেনবা অভিভাবকদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ ।

আজ ওই স্কুল পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচন হবে। এতে প্রার্থী হয়েছেন বর্তমান সভাপতি নুরুল আমীন কালাম এবং মাহবুবুল আলম। নুরুল আমীন কালাম শিক্ষার্থীদের মাধ্যমে অভিভাবকের ভোট চান শনিবার। এতে শিক্ষার্থীরা রাজি হয়নি। এ নিয়ে বর্তমান সভাপতি ক্ষিপ্ত হন। সভাপতির অনুগত বলে পরিচিত স্কুলের বিজ্ঞানের শিক্ষক হাবিবুর রহমান রোববার সকালে প্রথম ঘণ্টায় ওই শিক্ষার্থীদের মাথায় কাচি দিয়ে নিজেই এলোমেলো করে চুল কেটে দেন এমন ই অভিযোগ করছেন শিক্ষার্থীদের অভিভাবক। সাংবাদিকরা চুলকাটা মাথার ছবি তোলার সময় সাইদুল আমীন ও সাইফুল মেম্বার তার সঙ্গে বিতণ্ডা হয়। কেনবা সাংবাদিদের ছবি তুলতে বাধা দেওয়া হল।স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্যপ্রার্থী নাজমুল আলম খান ছেলে সপ্তম শ্রেণির ছাত্র আমিরুল মোমিন খানের মাথার চুল কাটা ও হয়েছে।

এটা মানবাধিকারের লঙ্ঘন নাকি শিষ্টাচার। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে বলছেন শিক্ষক শিক্ষার্থীদের শাসন করেছে। এটা কেমন শাসন, বর্তমানে বেত দিয়ে শিক্ষার্থীদের আঘাত করা পর্যন্ত নিষেধ , সেখানে চুল কাটা কতটা শিষ্টাচার ।

নির্বাচনী প্রতিহিংসা কিংবা ক্ষমতা পাওয়ায় লোভে কেনবা ভুক্তভোগী হতে হচ্ছে কোমলবতী শিক্ষার্থীদের । চুল কাটা এমন হয়েছে শিক্ষার্থীদের মাথা মুণ্ডন করতে হবে, কিন্তু উদ্দেশ্য যদি হয় চুল ছোট রাখা ,শিষ্টাচার বজায় রাখা তবে প্রশ্ন রইল চুল কি সেই ভাবে কাটা হয়েছে ??

মেহেদী জামান লিজন

সম্পাদক

ময়মনসিংহ ডিভিশন ২৪ ডট কম

প্রিন্ট করুন

মন্তব্য করুন