বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৪৩ অপরাহ্ন

৯৯ টি দেশে ভয়াবহ সাইবার হামলা

৯৯ টি দেশে ভয়াবহ সাইবার হামলা

saibar-cam-01-2017-05-13-13-49-30 (1)বিশ্বের অন্তত ৯৯টি দেশে বড় ধরণের সাইবার হামলার চালানো হয়েছে। শুক্রবাররাতে বিশ্বজুড়ে একযোগে এই বড় ধরনের হামলা চালানো হয়। এসব দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে’র‍্যানসমওয়্যার’ ছড়িয়ে কম্পিউটারের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়া হয়েছে। নিয়ন্ত্রণ ফিরে পেতেডিজিটাল মুদ্রা ‘বিট কয়েনের’ মাধ্যমে ৩০০ ডলার করে চাওয়া হয়েছে।

প্রথমে ৭৪টি দেশের কথা বলা হলেও বিবিসির সর্বশেষ খবরে বলা হয়েছে বিশ্বের মোট ৯৯টি দেশগতকাল রাতে সাইবার হামলায় শিকার হয়েছেন। উত্তর আমেরিকা, ইউরোপ থেকে শুরু করেএশিয়া পর্যন্ত অন্তত ৯৯টি দেশে এই হামলা করেছে হ্যাকাররা। খবর বিবিসি।

অনেক দেশের স্বাস্থ্য, টেলিকম বা যোগাযোগের মতো গুরুত্বপূর্ণ খাত এই হামলার শিকার হয়েছে।

এসব দেশের অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান আক্রান্ত হয়েছে। বিশেষ করে বড় ধরণের হামলার মুখেপড়েছে যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস। দেশটির হাসপাতালে জরুরি চিকিৎসা সেবা বন্ধকরে রাখতে হয়। স্পেনের টেলিকম ও জ্বালানি কোম্পানি, যুক্তরাষ্ট্রের ডেলিভারি কোম্পানিফেডএক্স এই হামলার শিকার হয়েছে।

বিবিসিসহ আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, শুক্রবার ‘র‌্যানসমওয়্যার’ সফটওয়্যারে ভাইরাস ছড়িয়ে দেয় হ্যাকাররা। এতে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, রাশিয়া, স্পেন, ইতালি, ভিয়েতনাম, তাইওয়ানসহ বিশ্বের বিভিন্নস্থানের কম্পিউটার ব্যবস্থা অচল হয়ে পড়ে।

যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ ডিপার্টমেন্টও ওই সাইবার হামলার শিকার হয়েছে। হামলার তালিকায়আছে ইউরোপের বিভিন্ন দেশের প্রতিষ্ঠানও।

এ সময় হ্যাকাররা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির ওয়েবসাইট অচল করে দিয়ে তিনশ থেকে ছয়শমার্কিন ডলার দাবি করে। এদিকে এ বিপর্যয় থেকে বেরিয়ে আসতে একযোগে কাজ শুরু করছেনঅনেক প্রযুক্তি নিরাপত্তা গবেষক ও প্রতিষ্ঠান।

সাইবার নিরাপত্তা সংস্থা অ্যাভাস্ট বলছে, ওয়ানাক্রাই এবং ভ্যারিয়্যান্ট নামের র‍্যানসমওয়্যারেরশিকার ৭৫ হাজার কম্পিউটার আক্রান্ত হওয়ার তথ্য পেয়েছেন। সংস্থাটির ম্যালওয়্যার বিশেষজ্ঞজ্যাকব ক্রুসটেক বলছেন, এটা বিশাল একটা ব্যাপার।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অনেক ক্ষেত্রে মিল দেখা গেলেও, নির্দিষ্ট করে কোন লক্ষ্যবস্তুতে এই হামলাচালানো হয়নি।

ধারণা করা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তা সংস্থা এনএসএর তৈরি করা একটি টুল ব্যবহার করে এইসাইবার হামলা চালানো হয়। গত এপ্রিলে শ্যাডো ব্রোকারস নামের হ্যাকাররা ওই প্রযুক্তিটি চুরিকরে এবং ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়। গত মার্চে এটি ঠেকাতে একটি নিরাপত্তা প্যাচ ছাড়েমাইক্রোসফট, কিন্তু অনেক কম্পিউটার তাতে আপডেট করা হয়নি।

এদিকে, জানা যাচ্ছে যে, এই র‍্যানসমওয়্যারে বিট কয়েনের যেসব ওয়ালেটে অর্থ জমা দিতে বলাহয়েছে, সেখানে নতুন করে মোটা অর্থ জমা পড়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

প্রিন্ট করুন
মন্তব্য করুন
শেয়ার করুন:





©সর্বস্বত্ব ২০১৬-২০২০ সংরক্ষিত